Social media fasting for 7 days

বর্তমান যুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ। এখন এই তথ্য প্রযুক্তির প্রাচুর্য কতটুকু আমাদের উন্নত করছে আর কতটুকুই বা অনুন্নত করছে সেটাই হল দেখার বিষয়। এই যে আমরা প্রতিনিয়ত তথ্য গ্রহন করছি বিভিন্ন স্যোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে আসলে একটু ভেবে দেখলে দেখা যাবে এর ৯০% তথ্যই আমাদের জন্য অপ্রয়োজনীয়।

আর সবচেয়ে বড় কথা আমাদের মন এমন একটি যন্ত্র এতে আপনি যা দেবেন তাই গ্রহন করবে আর এ সে অনুযায়ী এর ফলাফল আউটপুট হিসেবে বের করবে। আমরা যে প্রতিনিয়ত ফেসবুক, ইনসটাগ্রাম, হোয়াটস অ্যাপ ইত্যাদি স্যোশাল মিডিয়া গুলো থেকে প্রতিনিয়ত যে তথ্য গ্রহন করছি একবারও কী মনে হয়েছে এর থেকে কতটুকু আমার জন্য প্রয়োজনীয়???

কিন্তু আমরা বিনা দ্বিধায় স্ক্রলিং করছি আর তথ্য গিলছি আর এর ফল স্বরুপ মস্তিষ্ক ও আবর্জনায় পরিপূর্ন হচ্ছে। এখন এর জন্য ই আপনার এখন স্যোশাল মিডিয়া ফাস্টিং প্রয়োজন। যাতে আপনার মস্তিষ্ক অন্তত কিছুদিন যাতে এ আবর্জনা নেওয়া থেকে বিরত থাকতে পারে।

এখন এই ৭ দিন স্যোশাল মিডিয়া না চালিয়ে থাকা আহামরি কিছু নয়, কিন্তু অনেকের কাছে মনে হবে ৭ দিন কেমনে কী? আবার প্রশ্নও আসতে পারে ৭ দিন বাদ দেবার পর আবার চালানো শুরু করলে সেই তো আগের মতো আবার চালানো শুরু করে দিবো। তাহলে বাদ দিয়ে লাভ কী? তাহলে বলি এই আমিই আগে ৭ দিন তো দূরে থাক ঘুম থেকে উঠে আমার ফেসবুকে ঢুকতে হবেই। আমার আসলে প্রয়োজন আছে কীনা তার তোয়াক্কা না করে আমার ফেসবুকে ঢুকতে হবেই। এটাই ছিল আমার প্রতিদিন সকালের অবস্থা। তাহলে বুঝুন অবস্থা। যেখানে কিছুক্ষণ পরপর ফেসবুকে ঢোকার জন্য আমার মন আকুপাকু করতো সেখানে ৭ দিন তো দূরে থাক ১ দিন না চালিয়েই থাকা তো অসহনীয় বিষয় ছিল আমার কাছে। এখন তাহলে ৭ দিন কীভাবে সম্ভব হলো?

শুনুন তাহলে,

কিছুদিন ধরে এই ফেসবুক স্ক্রলিং করতে করতে একটা জিনিস খেয়াল করলাম কোন কাজ নাই, শুধু শুধু স্ক্রলিং করেই যাচ্ছি আর এখান থেকে একটু তথ্য ঐখান একটু তথ্য এরকম করে একের পর এক তথ্য মাথায় আসছে আর আসছে এবং আমি রোবটের মত স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে আছি যেন ফেসবুক আমাকে তার ইশারায় নাচাচ্ছে তখন মনে হলো যে, আমি কী প্রযুক্তি চালাচ্ছি না প্রযুক্তি আমাকে চালাচ্ছে। এ কথা মনে হতেই ঠিক করে ফেললাম ব্যস!! অনেক হয়েছে ৭ দিন নো স্যোশাল মিডিয়া। এবং আমি পারলামও। আর পারার পর মনে হলো এটা আহামরি কিছুই না একটু ইচ্ছা থাকলেই পারা সম্ভব।

এবং ৭ দিন পর যখন আপনি ফেসবুকে আসবেন তখন আপনি আর সেই আগের আপনি থাকবেন না। তখন আপনি স্যোশাল মিডিয়া চালনা করবেন স্যোশাল মিডিয়া আপনাকে নয়। আর তখন আপনি ফেসবুকে তাই করবেন যা আপনার জন্য প্রয়োজন। আসলে প্রযুক্তি ব্যবহার কোন খারাপ জিনিস নয়। কিন্তু আমরা ভুলে যাই কোথায় তা থামাতে হবে। আর এটা তখনই সম্ভব যখন আপনার চেতনা জাগ্রত হবে।

আজ হয়ত আপনি ফেসবুক চালাচ্ছেন ঘন্টার পর ঘন্টা অবসরে কিন্তু যখন ফেসবুক ছিল না তখন হয়ত ঘন্টার পর ঘন্টা টিভি দেখে মাথা ভারী করেছেন। তাই প্রযুক্তি বাদ দেওয়া নয়, একে সঠিকভাবে চালনা করা দরকার। আমরা প্রযুক্তি তে রিভল্যুশন সৃষ্টি করেছি কিন্তু চেতনার ক্ষেত্রে সমপরিমান রিভল্যুুশন সৃষ্টি করতে পারি নি তাই আমাদের আজ এই অবস্থা।

তাই এই ৭ দিন আপনি যদি বিরত থাকতে পারেন আর যে সময়গুলোকে স্যোশাল মিডিয়ার দ্বারা নষ্ট করেছেন সে সময়গুলোতে আপনার প্রয়োজনীয় কাজে ব্যয় করতে পারেন; তাহলে এই ৭ দিন থেকে আপনার ভেতর একটা বোধ ও আত্মবিশ্বাস জন্মাবে। আর তখন স্যোশাল মিডিয়া আপনাকে নয় আপনি স্যোশাল মিডিয়াকে চালাবেন ও এখান থেকে আপনি তখন উপকৃত হতে পারবেন।

0Shares

নাজিউর রহমান নাঈম

আমিকে খুঁজে বেড়াচ্ছি। কিন্তু সে যে কোথায় লুকাইলো ও এই লোকটি যে তা বড় আশ্চর্যের বিষয়! আমি হারিয়ে যা হল একে কীই-বা বলা যায় বলুন। এখন যাকে দেখছেন সে তো অন্য কাজ করে বেড়াচ্ছে, তার পরিচয়ও নিশ্চয়ই বদলে গেছে। তাহলে আপনি কাকে দেখছেন? দেখছেন আপনাকে আপনার চিন্তাকে যা আপনাকে আমাকে দেখাচ্ছে বা কল্পনা করাচ্ছে। তাহলে শুধু শুধু পরিচয় জেনে কী হবে বলুন। তার চেয়ে বরং কিছু সাইকোলাপ-ই পড়ুন ও নিজেকে হারিকেন নিয়ে খুঁজতে বেরিয়ে পড়ুন। পথিমধ্যে হয়ত কোথাও দেখা হয়েও যেতে পারে!!! সে পর্যন্ত- কিছু কথা পড়ে থাকুক জলে ভেজা বিকালে খুঁজে চলুক এই আমি পিলপিল করে অনন্ত "আমি" র অদৃশ্য পর্দার আড়ালে

You may also like...

2 Responses

  1. routhrunu68@gmail.com' Runu Routh says:

    ৭ দিন বিশেষ কোনো পদ্ধতির মধ্যে দিয়ে গিয়েছিলেন কিনা যদি যান তা শেয়ার করলে আরও উপকৃত হতাম।

  2. নাজিউর রহমান নাঈম says:

    Sure. I’ll post soon. 🙂

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *