The Art Of Peace (Audio Book)

জাপানিজ ‘আইকিডো'(Aikido) মার্শাল আর্টের প্রতিষ্ঠাতা মরিহেই উইশিবা’র অনবদ্য বই “The Art Of Peace”। এ বইটির একটি মারাত্মক অডিওবুক শুনলাম আজ। বইটি যে বেশ ছোট তা অডিওবুকের সময় দেখেই আপনারা আন্দাজ করতে পারবেন। মাত্র ৫৮ মিনিটের অডিওবুক এটি।
 
কিন্তু ছোট হলে কী হবে, এ মরিচের ঝাল খুবই কড়া। লাওৎসু যেমন তার এক ” ডাও ডে চিং” দিয়ে ২৫০০ বছর ধরে মানুষকে নাকানি চোবানি খাওয়াচ্ছেন। এই বই আমার কাছে মনে হল ডাও ডে চিং এরই একটা বর্ধিত সংস্করণ। এত অল্পকথায় মারাত্মক কথাগুলো কী শান্তভঙ্গিতে ও সাবলীলভাবে উপস্থাপন করেছেন।
 
আসলে ইনারা বোধহয় অলস, অল্প কথা বলেই ছেড়ে দেন। তবে লাওৎসু’র কথায় রহস্যের প্যাঁচ থাকলেও। এতে তেমন নেই, বরং এখানে বেশকিছু ধারার ব্লেন্ড হয়েছে যা এই বইটিকে আরও চমৎকার করে তুলেছে। এতে নন-ডুয়ালিটি, আইকিডো, নন-ভায়োলেন্স, ওয়ারিয়রসীপ, তাওবাদ ইত্যাদির চমৎকার সমন্বয় সাধিত হয়েছে।
 
আর লাওৎসুর প্রসঙ্গ বারবার টানলাম এ কারণে যে ইনার চেহারার সাথে লাওৎসুর বেশ মিল আছে। যাই হোক তবে এটা ভুলে গেলে চলবে না যে, লাওৎসুর দর্শন থেকে পরবর্তীতে প্রত্যক্ষভাবে না হলেও পরোক্ষভাবে অনেক প্রকারের মার্শাল আর্টের উদ্ভব হয়।
 
এবার অডিওবুক সম্পর্কে কিছু বলা যাক। অডিওবুকটি এককথায় অসাধারণ। এর ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ও ন্যারেটরেরর শান্ত গলার ভঙ্গি আপনার স্ট্রেস লেভেল অর্ধেকে নামিয়ে নিয়ে আসবে। আপনি বইটি না বুঝলে ধৈর্য ধরে ৫৮ মিনিট শুনলে এর আওয়াজ শুনলেই আপনি রিল্যাক্স হয়ে যাবেন।
 
বইটিতে বারংবারই শান্তির কথাটাই বলা হয়েছে যা এই মুহূর্তে খুবই প্রাসঙ্গিক। তবে যেনতেন শান্তি নয়। বরং এ হল আপনার গভীরে থাকা এক শান্তির প্রবাহ যা আপনি আপনার কেন্দ্রে ও শ্বাস-প্রশ্বাসের মাঝে খুঁজে পান। শারীরিক, মানসিক, বৌদ্ধিক ও আত্মিক সমন্বয় প্রতিনিয়ত করে যাওয়ার মাঝেই আমাদের এই শান্তির শৈল্পিক গুণ গড়ে ওঠে। সমস্ত ধারা সেই একই চূড়ায় পৌঁছে কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন পথে। তাই অন্যে ধারার প্রতি সহমর্মি দৃষ্টিভঙ্গির কথাও এ বইটি আমাদের বলে।
 
এ বই আরও পূর্বে প্রচলিত ধারায় যা বর্ণনা করা হয়েছে তা সত্যের সবটুকু বর্ণনা করতে পারেনি, তারা কেবল এর অংশটুকুই বর্ণনা করেছে। এটা অসম্ভব পুরোটা বর্ণনা করে এবং সম্ভবও নয়। এর পাশাপাশি বলা হয়েছে যে পূর্বের ধ্যানধারণার সাথে এখনকার পরিস্থিতির মিল নেই, সুতরাং তা হুবুহু কাজে দিবেনা। আমাদের উচিত পুরনো ও নতুন সাথে ব্লেন্ড করে সেই ভিত্তির ওপর নতুন কিছুর উন্মেষ ঘটানো যা আমাদের কে শান্তির ক্ষেত্রে প্রবেশ করাবে।
0Shares

নাজিউর রহমান নাঈম

আমিকে খুঁজে বেড়াচ্ছি। কিন্তু সে যে কোথায় লুকাইলো ও এই লোকটি যে তা বড় আশ্চর্যের বিষয়! আমি হারিয়ে যা হল একে কীই-বা বলা যায় বলুন। এখন যাকে দেখছেন সে তো অন্য কাজ করে বেড়াচ্ছে, তার পরিচয়ও নিশ্চয়ই বদলে গেছে। তাহলে আপনি কাকে দেখছেন? দেখছেন আপনাকে আপনার চিন্তাকে যা আপনাকে আমাকে দেখাচ্ছে বা কল্পনা করাচ্ছে। তাহলে শুধু শুধু পরিচয় জেনে কী হবে বলুন। তার চেয়ে বরং কিছু সাইকোলাপ-ই পড়ুন ও নিজেকে হারিকেন নিয়ে খুঁজতে বেরিয়ে পড়ুন। পথিমধ্যে হয়ত কোথাও দেখা হয়েও যেতে পারে!!! সে পর্যন্ত- কিছু কথা পড়ে থাকুক জলে ভেজা বিকালে খুঁজে চলুক এই আমি পিলপিল করে অনন্ত "আমি" র অদৃশ্য পর্দার আড়ালে

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *