শার্লক হোমসের ৩টি বেস্ট গেমস

স্যার আর্থার কোনান ডয়েলের অমর সৃষ্টি শার্লক হোমস চরিত্রটি। শার্লক হোমসের বই পড়ে আন্দোলিত হয়নি এমন পাঠক খুব কমই পাওয়া যায়। শার্লক হোমস ছাড়াও আরও অনেক গোয়েন্দা চরিত্র রয়েছে যেমনঃ ফেলুদা, ব্যোমকেশ, কাকাবাবু, এরকুল পোয়ারো, মিস মারপেল ইত্যাদি ইত্যাদি। তবে এতসব চরিত্রের মাঝেও শার্লক হোমস্- ই আমার প্রথম পছন্দ।

শার্লকের গল্প, মুভি, টিভি সিরিজ এগুলো দেখতে দেখতে যাদের কাছে মনে হয়েছে ইশ! যদি শার্লকের মত যদি রহস্যের সমাধান করতে পারতাম,,,
যাদের এমনটি অনুভব হয়েছে তাদের এ আশা মেটাতেই শার্লক হোমস্ এর উপর নির্মাণ করা তিনটি অসাধারণ পিসি গেমের রিভিউ নিয়েই আজকের এই ব্লগটি।

বলে রাখা ভালো যে তিনটি গেমের নাম বলব তারও আগে শার্লকের উপর অনেক গেম তৈরী হয়েছে তবে তা তেমন আশানুরূপ হয়নি। তাই ওগুলো এই রিভিউতে আর উল্লেখ করা হলো না। শুরু করা যাক তাহলে।

১. The Testament Of Sherlock Holmes : এ গেমটির নির্মাতা হল Frogware। এটি ২০১২ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর রিলিজ হয়। শার্লক হোমস ও তার প্রিয় সহযোগী ওয়াটসনকে নিয়ে একটি অনবদ্য গল্প একটি ডিডেকটিভ অ্যাডভেন্ঞ্চার হল এই গেমটি।

Plot : গল্পের শুরুতেই একটি অমূল্য মুক্তার গহনার কেস শার্লকের হাতে এসে পড়ে ও তা সে তার সহজাত মারাত্মক বুদ্ধির দ্বারা সমাধান করে ফেলে। তারপর ইন্সপেক্টর বেইনস একজন বিশপের মৃত্যুর কেস নিয়ে আসে যার মৃত্যু হয় বিষক্রিয়ার ফলে। যথারীতি শার্লক ও তার সহযোগী ওয়াটসন তা সমাধান করতে বেরিয়ে পড়ে। এরপর থেকে সেই সূত্র ধরে বেরিয়ে আসতে থাকে প্রফেসর মরিয়ার্টির লন্ডন শহরের অরাজকতা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র। এ গভীর ষড়যন্ত্র ঠেকাতে গিয়ে এক চমৎকার অ্যাডভেন্ঞ্চারে নেমে পড়ে হোমস ও ওয়াটসন।

Features :

১. এ গেমে রয়েছে বেশ অসাধারণ সব ধাঁধা।
২. First, Second, Third Person Mode – এ গেমটি খেলা যাবে।
৩. আপনাকে বিভিন্ন চরিত্রে খেলতে হবে। কখনও শার্লক, কখনও হোমস, কখনও বা কুকুর টোবির চরিত্রে আপনাকে অবতীর্ণ হতে হবে।
৪. সবচেয়ে মজার ব্যাপার হল শার্লকের ডিডাকটিভ মেথড প্রয়োগের সুযোগ এখানে রয়েছে অর্থাৎ আপনাকে ডিডাকটিভ চিন্তাভাবনা করে সমস্যা সমাধান করতে হবে। আর সূত্র ধরে শার্লক হবার একটা অনুভূতি আপনি পেয়ে যাবেন।
৫. গ্রাফিক্স মোটামুটি মানের তবে ২০১২ সালের গেম এটা মাথায় রাখতে হবে।

System Requirements :

Processor:AMD/INTEL DUAL-CORE 2 GHZ. Memory:2048 MB RAM. Graphics:256 MB 100% DIRECTX 9 AND SHADERS 3.0 COMPATIBLE ATI RADEON HD 2600 XT/NVIDIA GEFORCE 8600 GT OR HIGHER. 

My Rating :

Story : 9.5/10
Graphics : 7/10
Features : 7.5/10

২. Sherlock Holmes-the crime & punishment :

এ গেমটিরও নির্মাতা হল frogware। এ গেমটি রিলিজ হয় ৩০ সেপ্টেম্বর,২০১৪ তে। এ গেমটিতে সিঙ্গেল কোন স্টোরি নেই। এটিতে আলাদা আলাদা ৬ টি স্টোরি রয়েছে এবং এসব আপনাকে সমাধান করতে হবে। তবে মজার ব্যাপার হল এটি একটি চয়েস ভিত্তিক গেম। আপনার সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করবে অপরাধী ধরা পড়বে কী পড়বে না। এ গেমের অনেকগুলো এন্ডিং রয়েছে। আপনার সিদ্ধান্ত ঘটনাকে প্রভাবিত করবে।

এ গেমটিতে আপনাকে একদম শার্লকের মতই ভাবতে হবে ও সেইসাথে গুরুত্বপূর্ণ ডিডাকশনের একটা সিদ্ধান্তের সাথে আরেকটা সিদ্ধান্ত মিলিয়ে আপনাকে নিতে হবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। আপনার সিদ্ধান্ত ভুল হলে আপনার ডিডাকশনও ভুল হবে এবং অপরাধীও আর ধরা পড়বে না। এ গেমটির শুরুতেই রয়েছে ব্ল্যাক পিটারের কেস যা আমরা শার্লক হোমসের গল্পের বইতে পড়েছি। এ যেন তারই ভিজুয়াল একটা ভার্সন। এর সাথে কিছু বইয়ের গল্প ও অন্যান্য গল্প মিলিয়ে ৬ টি স্টোরি সত্যিই এক মুহূর্তের জন্য হলেও আপনার ভেতর শার্লক হোমস-এর অনুভূতি এনে দিবে।

Stories :

. The Fate of Black Peter
. The Riddle on the Rails
. The Blood Baths
. The Abbey Grange Affairs
. The Kew Gardens Drama
. A Half Moon Walk

Features :

এ গেমটিতে আপনি কোন বস্তু বা ব্যক্তিকে শার্লক যেমন তার সাথে দেখা হবার সাথে সাথে সবকিছু বলে দিত তার নাক, কান, জুতা, হাতের আংটির দাগ ইত্যাদি দেখে তেমনি আপনিও কোন বস্তু বা ব্যক্তিকে দেখার সাথে সাথে তা pause হয়ে যাবে ও আপনি তাকে পর্যবেক্ষণ করে আপনি ডিডাকশন প্রসেসের মাধ্যমে তার সমস্ত কিছু বলে দিতে পারবেন যা Testament of Sherlock Holmes গেমটিতে ছিল না।

তাছাড়া ডিডাকশনের ক্ষেত্রেও আনা হয়েছে অনেক পরিবর্তন। আপনাকে এ গেমে একটা চিন্তার সাথে আরেকটা চিন্তার সংযোগ স্থাপন ও চিন্তার মাধ্যমে ডিডাকশন করতে হবে ও সাজাতে হবে।

সেইসাথে চয়েস তো রয়েছেই। আর এটিতেও আপনি First, Second, Third person Mode-এ খেলতে পারবেন। গ্রাফিক্স আগের গেমের তুলনায় অসাধারণ।

System Requirements :

Memory: 2048 MB RAM. Graphics: 256 MB 100% DIRECTX 9 COMPATIBLE AMD RADEON HD 3850/NVIDIA GEFORCE 8600 GTS OR HIGHER. DirectX: Version 9.0c. Storage: 14 GB available space.

My Rating :

Story : 8/10
Graphics : 09/10
Features : 09/10

Sherlock Holmes the Devil’s Daughter :

এ গেমটি রিলিজ হয় ২৫শে অক্টোবর, ২০১৬ তে ও এই গেমের নির্মাতাও Frogware। গেমটির নাম যেহেতু Devil’s Daughter, তাই এই গেমে বুদ্ধিদীপ্ত কেস সমাধানের পাশাপাশি একটু হররিক ফিলিং পাওয়া যাবে। এবার এ গেমটিতে রয়েছে ৫টি কেস। শার্লক হোমস, ওয়াটসন এদের চেহারায় আনা হয়েছে পরিবর্তন। পরিবেশেও বেশ পরিবর্তন আনা হয়েছে। শার্লক হোমসের সাথে একটি ছোট মেয়ের দেখা পাওয়া যায় গেমটিতে। এ মেয়েটিকে নিয়ে কী রহস্য তা ধীরে ধীরে শার্লকের অন্যানা কেস সমাধানের সাথে সাথে এগোতে এগোতে থাকে।

তবে এ গেমের ক্ষেত্রে এন্ডিং টা আমার তেমন একটা পছন্দ হয়নি। ডেভিলস ডটারের বিষয়টা কেমন যেন খাপ খায়নি। তবে কেসগুলো চমৎকার ছিল।

Stories :

. Prey Tell
. A Study in Green
. Infamy
. Chain Reaction
. Fever Dreams

Features :

ডিডাকশনের ক্ষেত্রে crime & punishment গেমের মত থাকলেও অবজারভেশনের ক্ষেত্রে নতুন একটি বিষয় যুক্ত হয়েছে এ গেমটিতে।

আপনি কোন অ্যাকশন নেবার আগে তা ধাপে ধাপে কী কী করবেন তার ভিজুয়ালাইজ করতে পারবেন। অন্যরা ফিসফিস করে কী কথা বলছে তা স্পেশাল ইয়ার ব্যাবহার করে শুনতে পারবেন।

পাজলগুলো বেশ ইউনিক ও আপডেটেড। ইচ্ছামত যেকোন আউটফিট পরিধান করতে পারবেন কেসের প্রয়োজন অনুসারে। ছদ্মবেশও ধারণ করতে পারবেন নিজের ইচ্ছেমত।

সাউন্ড বেশ ইম্প্রুভড। গ্রাফিক্স Crime & Punishment থেকে একটু লো লেগেছে।

System Requirements :

OS: Windows 7 64 Bit / Windows 8.1 64 Bit / Windows 10 64 Bit. Processor: INTEL Core i3 3.6GHz / AMD FX Series 4.2GHz Quad-Core. Memory: 6 GB RAM. Graphics: 1024 MB 100% DirectX 11 compatible AMD Radeon HD 7790 / NVIDIA GeForce 460 GTX.Jun 10, 2016

My Rating :

Story : 8/10
Graphics : 8/10
Features : 9.5/10

0Shares

নাজিউর রহমান নাঈম

আমিকে খুঁজে বেড়াচ্ছি। কিন্তু সে যে কোথায় লুকাইলো ও এই লোকটি যে তা বড় আশ্চর্যের বিষয়! আমি হারিয়ে যা হল একে কীই-বা বলা যায় বলুন। এখন যাকে দেখছেন সে তো অন্য কাজ করে বেড়াচ্ছে, তার পরিচয়ও নিশ্চয়ই বদলে গেছে। তাহলে আপনি কাকে দেখছেন? দেখছেন আপনাকে আপনার চিন্তাকে যা আপনাকে আমাকে দেখাচ্ছে বা কল্পনা করাচ্ছে। তাহলে শুধু শুধু পরিচয় জেনে কী হবে বলুন। তার চেয়ে বরং কিছু সাইকোলাপ-ই পড়ুন ও নিজেকে হারিকেন নিয়ে খুঁজতে বেরিয়ে পড়ুন। পথিমধ্যে হয়ত কোথাও দেখা হয়েও যেতে পারে!!! সে পর্যন্ত- কিছু কথা পড়ে থাকুক জলে ভেজা বিকালে খুঁজে চলুক এই আমি পিলপিল করে অনন্ত "আমি" র অদৃশ্য পর্দার আড়ালে

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *